ফিচার্ড বিনোদন

কারও তিন মাস তো কারও ৩০ ঘণ্টা! সবচেয়ে কম সময় বিয়ে টিকেছিল

কারও বিয়ে টিকেছে কয়েক মাস, কারও মাত্র কয়েক ঘণ্টা। বিয়ের স্বল্পমেয়াদের কারণে নানা সময়ে খবরে এসেছেন খ্যাতনামীরা।
কারও তিন মাস তো কারও ৩০ ঘণ্টা! সবচেয়ে কম সময় বিয়ে টিকেছিল যে হলি-বলি তারকাদের
হলিউড বা আন্তর্জাতিক স্তরের খ্যাতনামীদের মতোই এই তালিকায় নাম রয়েছে বলিউডের কয়েক জন তারকারও। দেখে নেওয়া যাক তাঁরা কারা।
ওজানি নোয়া, জেনিফার লোপেজ: প্রথম বার বিয়ে করেন গায়িকা-অভিনেত্রী। ১৯৯৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে হওয়া এই বিয়ে টিকেছিল মাত্র ৩১৩ দিন।

জিম ক্যারি, লরেন হলি: ১৯৯৬ সালে বিয়ে করেন হলিউডের দুই তারকা। কিন্তু শোনা যায়, বিয়ের পরেই তাঁরা দু’জনেই আবিষ্কার করেন, অন্যজনের অন্য কারও সঙ্গে প্রেম চলছে। ৩০৯ দিনের মাথায় সম্পর্ক ভাঙে তাঁদের।
জেনিফার লোপেজ, ক্রিস জাড: আগের স্বল্পমেয়াদী বিয়ে ভাঙার পরে ২০০১ সালে ক্রিসকে বিয়ে করেন জেনিফার। তবে এই বিয়েও বেশি দিন টেকেনি। টিকেছিল মাত্র ২১৮ দিন।

টম গ্রিন, ড্রিউ ব্যারিমোর: ১৬৩ দিন টিকেছিল এই বিয়ে। তবে টম এবং ড্রিউয়ের সম্পর্ক এর পরেও ভালই থেকেছে। যদিও আরও একটি বিয়ের স্বল্পমেয়াদের কারণেও এর পরে খবরে এসেছেন ড্রিউ।

ডেনিস রডম্যান, কারমেন ইলেকট্রা: সুপারমডেল কারমেন ১৯৯৮ সালে বিয়ে করেন ডেনিসকে। ন’দিনের মাথায় বিচ্ছেদের কথা ঘোষণা করেন তারাঁ। যদিও বিচ্ছেদ পেতে সময় লেগেছিল ১২৯ দিন।

জেনিফার এসপোসিতো, ব্র্যাডলি কুপার: ২০০৬ সালে বিয়ে। ১২২ দিনের মাথায় বিচ্ছেদ। তবে শান্তিপূর্ণ ভাবেই বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন দু’জনে।

কিড রক, পামেলা অ্যান্ডারসন: ২০০৬ সালে বিয়ে করেন পামেলা এবং কিড। তার পরেই ঝগড়া। ১২২ দিনে বিচ্ছেদ। তার পরে না কি পরস্পরের সঙ্গে সব যোগাযোগ বন্ধও করে দেন তাঁরা।

কলিন ফ্যারেল, এমিলি ওয়ার্নার: ১২১ দিন টিকে ছিল এই বিয়ে। ২০০১ সালে জুলাই মাসে বিয়ে করেন তাঁরা। দ্রুতই জানিয়ে দেন বিচ্ছেদের কথাও।

নিকোলাস কেজ, লিজা মারি প্রেসলি: এলভিস প্রেসলি একমাত্র মেয়েকে ২০০২ সালের অগস্টে বিয়ে করেন হলিউড অভিনেতা। নভেম্বরেই বিচ্ছেদের ঘোষণা। বিয়ে টিকেছিল মাত্র ১০৭ দিন।

ক্রিম হামফ্রিস, কিম কারদাশিয়ন: দুই তারকার বিয়ে টিকেছিল মাত্র ৭২ দিন। ২০১১ সালে অগস্ট মাসে বিয়ের কিছু দিনের মধ্যেই বিচ্ছেদের কথা ঘোষণা করেন তাঁরা।

জেরেমি থমাস, ড্রিউ ব্যারিমোর: ১৯ বছরের ড্রিউ আচমকাই বিয়ে করেন জেরেমিকে। যদিও বিয়ে টিকেছিল মাত্র ৩৯ দিন।

ট্রেসি এডমন্ড, এডি মার্ফি: ২০০৮ সালে বিয়ে করেন দু’জনে। ১৪ দিনের মাথায় বিচ্ছেদের ঘোষণা। তবে ঠিক তার পরেই নিমন্ত্রিত অতিথিদের বিয়ের এবং বিচ্ছেদের খাওয়া একসঙ্গে খাওয়ান দু’জনে।

এরিকা কোইকে, নিকোলাস কেজ: রূপটানশিল্পী এরিকার সঙ্গে নিকোলাসের বিয়ে হয় ২০১৯ সালে। চার দিনের মাথায় ঝগড়া এবং বিচ্ছেদ।

জেসন আলেকজান্ডার, ব্রিটনি স্পিয়ার্স: খ্যাতনামীদের স্বল্পমেয়াদের বিয়ের তালিকায় একেবারে উপরেই থাকবে পপগায়িকার নাম। ২০০৪ সালে বাল্যবন্ধু জেসনকে বিয়ে করেন তিনি। বিয়ে টিকেছিল মাত্র ৫৫ ঘণ্টা।

জেনিফার উইনজেট, কর্ণ সিংহ গ্রোভার: মাত্র কয়েক ঘণ্টায় বিয়ে ভেঙে যাওয়ার রেকর্ড বলিউডের খ্যাতনামীদের মধ্যে তেমন না থাকলেও, অনেকেরই বিয়ে খুব স্বল্পমেয়াদী হয়েছে। কর্ণ এবং জেনিফারের বিয়ে টিকেছিল মাত্র ২৪ মাস।

কর্ণ সিং গ্রোভার, শ্রদ্ধা নিগম: জেনিফারের আগে কর্ণ বিয়ে করেছিলেন শ্রদ্ধাকে। সেই বিয়েও মাত্র ১০ মাসে ভেঙে যায়।

সম্রাট দহল, মনীষা কৈরালা: ২০১০ সালে নেপালের শিল্পপতিকে বিয়ে করেন মনীষা। কিন্তু বিয়ের পর থেকে ঝগড়ার কথা শোনা যেত। ২৪ মাসের মাথায় সম্পর্ক ভাঙেন তাঁরা।

যোগিতা বালি, কিশোর কুমার: এই বিয়েও টিকেছিল মাত্র ২৪ মাস। কিশোর কুমারের তৃতীয় বিয়ে এটি। এর পরে যোগিতার সঙ্গে মিঠুন চক্রবর্তীর প্রেম শুরু হয়।

মুকেশ আগরওয়াল, রেখা: বলিউডের সবচেয়ে চর্চিত বিয়েগুলির একটি। ১৯৯০ সালে দিল্লির শিল্পপতি মুকেশকে বিয়ে করেন রেখা। এই বিয়ের শেষটিও রীতিমতো দুঃখের। শোনা যায়, মুকেশ অবসাদে ভুগছিলেন। বিয়েও না কি ভাঙতে চলেছিল। ঠিক তখনই আত্মহত্যা করেন দিল্লির এই শিল্পপতি। মাত্র ১২ মাসেই শেষ হয় বিয়ে।
আপনার মতামত দিন