অবিশ্বাস্য হলেও সত্য ফিচার্ড

ফেসবুক খুললেই থাপ্পড়

ফেসবুক খুললেই থাপ্পড় দিতে এক নারীকে নিয়োগ দিয়েছিলেন যে কোম্পানি প্রধান

ওয়্যার‌্যাবল ডিভাইস কোম্পানি পাভলোক-এর প্রতিষ্ঠাতা ভারতীয় বংশোদ্ভূত ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মানিশ শেঠী নিজের দায়িত্বের প্রতি এতটাই অবিচল ছিলেন যে, একদা তিনি একজন নারীকে নিয়োগ দিয়েছিলেন। তার কাজই হলো মানিশ শেঠী ফেসবুক ওপেন করলেই তাকে থাপ্পড় দেয়া। মানিশ যতবার ফেসবুক খুলবেন, ততবারই তাকে থাপড় দেয়ার দায়িত্ব ছিল ওই নারীর। মানিশের এমন সিদ্ধান্তে অভিভূত মার্কিন ধনকুবের ইলন মাস্ক। এ খবর দিয়েছে অনলাইন এনডিটিভি।

সে ২০১২ সালের কথা। তখন মানিশ শেঠী অনুধাবন করলেন যে, তার উৎপাদনশীলতা বাড়াতে হবে। বাজে কাজে সময় নষ্ট করা যাবে না। তিনি কোনো বাজে কাজে মনোনিবেশ করলে তা থেকে তাকে বিরত রাখার জন্য একজন কারো প্রয়োজন।

তাই তিনি ক্রেইগলিস্টে ঢুঁ মারলেন। সেখানে এমন একজনকে খুঁজলেন, মানিশ শেঠী কাজের সময় যখনই ফেসবুক খুলবেন, তখনই তিনি তাকে থাপ্পড় মারবেন। মানিশ বলেন, ঠিক এই কাজের জন্য, অর্থাৎ আমি কাজের সময় ফেসবুক খুললেই আমাকে থাপ্পড় মারার জন্য ক্রেইগলিস্ট থেকে একটি মেয়েকে ভাড়া করলাম।

এর ফল দেখা গেল বিস্ময়কর। পাভলক কোম্পানির এই প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মানিশ ওই নারীকে প্রতি ঘন্টায় ৮ ডলার বেতনে কাজ দিলেন। তার নাম কারা। এ ছাড়া ওই নারীর পূর্ণ নাম প্রকাশ করেননি তিনি। এর ফলে ওই নারীর থাপ্পড় খাওয়ার ভয়ে মানিশ শেঠীর উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি পেল শতকরা ৯৮ ভাগ।
কাজের সময় ফেসবুক খোলার কারণে মানিশকে থাপ্পড় দিচ্ছেন কারা- এমন একটি ছবি সম্প্রতি টুইটারে প্রকাশ হয়েছে। আর তা পড়েছে ইলন মাস্কের চোখে।

তেসলা এবং স্পেস-এক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইলন মাস্ক এই ছবি দেখে দুটি ফায়ার ইমোজি দিয়ে জবাব দিয়েছেন। কোনো কিছু চমৎকার অথবা প্রচণ্ড উৎসাহব্যাঞ্জক এটা বোঝাতে এই ইমোজি ব্যবহার করা হয়। এ নিয়ে ইলন মাস্কের টুইটে প্রায় ১০ জাজার লাইক পড়েছে।

 

এসএস/সিএ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ-বিদেশের টাটকা খবর আর অন্যান্য সংবাদপত্র পড়তে হলে CBNA24.com

সুন্দর সুন্দর ভিডিও দেখতে হলে প্লিজ আমাদের চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

আমাদের ফেসবুক পেজ   https://www.facebook.com/deshdiganta.cbna24 লাইক দিন এবং অভিমত জানান

আপনার মতামত দিন