অবিশ্বাস্য হলেও সত্য

মেয়ে ফিরলেন পুরুষ রূপে, সঙ্গে স্ত্রী-সন্তান

মেয়ে ফিরলেন পুরুষ রূপে, সঙ্গে স্ত্রী-সন্তান

অবিশ্বাস্য হলেও সত্য  মেয়ে ফিরলেন পুরুষ রূপে, সঙ্গে স্ত্রী-সন্তান !  দীর্ঘ ১৫ বছর পর মাদারীপুরের শিবচরের বাড়ি ফিরলেন তিনি। এতদিন পর স্ত্রী ও সন্তানকে সঙ্গে নিয়ে বাড়ি ফেরার ঘটনায় সবাই আশ্চর্য। কারণ তিনি যখন বাড়ি থেকে রেব হয়েছিলেন তখন ছেলে ছিলেন। আর মেয়ে থেকে ছেলে হওয়া যুবক সেলিম রেজাকে দেখতে তার বাড়িতে উৎসুক জনতার ভিড় জমেছে।

সেলিম রেজার পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার শিবচরের নিলখী ইউনিয়নের চর কামারকান্দি গ্রামের সেকান্দার খানের মেয়ে সেরেলা আক্তার হেনা প্রায় ১৫ বছর আগে বাবা-মায়ের সঙ্গে গ্রাম ছেড়ে ঢাকা শহরে বসবাস শুরু করেন। ঢাকায় থাকাকালীন তিনি পল্লী চিকিৎসক কোর্স সম্পন্ন করে। প্রায় আট বছর আগে সেরেলা আক্তার হেনা তার নিজের শারীরিক পরিবর্তন লক্ষ্য করেন। তার মধ্যে পুরুষালী পরিবর্তন দেখে তিনি চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন। চিকিৎসক তাকে জানান হরমোনজনিত কারণে এই সমস্যা হয়েছে। ওষুধ খাওয়া শুরু করলেও ধীরে ধীরে সে সম্পূর্ণ একজন পুরষ মানুষে রূপান্তরিত হয়ে যান। এরপর তিনি নিজের নাম বদল করে সেলিম রেজা রাখেন।

প্রায় পাঁচ বছর আগে এক মেয়েকে বিয়ে করেন। বর্তমানে সেলিম রেজার বয়স ৩০ বছর। তার ছোট একটি ছেলে রয়েছে। গত প্রায় এক সপ্তাহ আগে সেলিম তার স্ত্রী ও সন্তান নিয়ে গ্রামের বাড়ি শিবচরের চর কামারকান্দি গ্রামে আসেন। নারী থেকে পুরুষ হয়ে যাওয়া সেলিম রেজার আসার সংবাদ পেয়ে এলাকায় চাঞ্চল্য দেখা দেয়। তাকে একনজর দেখতে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন গ্রাম থেকে উৎসুক মানুষ তার বাড়িতে ভিড় করছেন।

সেলিম রেজার প্রতিবেশী আসমা বেগম বলেন, ‘সেলিম আগে মেয়ে ছিল। নাম ছিল হেনা। আমাকে নানী বলত। আমার কাছে অনেক থাকত। ঢাকা যাওয়ার পর সেখানেই ওর শারিরিক পরিবর্তন হয়েছে। ও বিয়ে করে স্ত্রী ও সন্তান নিয়ে কয়েকদিন হলো গ্রামে এসেছে।’

প্রতিবেশী আলম খান বলেন, ‘ওরা ঢাকা থাকা অবস্থায় আমার সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করত। ও নারী থেকে পুরুষে রূপান্তর হওয়ার খবর আমাকে জানিয়ে বলেছিল, “চাচা আল্লাহ যেহেতু আমাকে মেয়ে থেকে পুরুষ বানিয়ে দিয়েছেন তাহলে আর ঢাকায় থাকব না। গ্রামে এসে প্রয়োজনে দিন মজুরি করে বাবা মায়ের ভরণ পোষণ করব”।’

পাশের গ্রামের আতাউর রহমান বলেন, ‘একটি মেয়ে ছেলে হয়ে গেছে শুনে তাকে দেখতে এসেছি। তার কণ্ঠ শুধু মেয়ের মতো। চলাফেরা পুরুষের মতোই। আবার তার স্ত্রী ও সন্তান দেখলাম। সত্যিই এটা অবাক করা ব্যাপার। আমার মতো অনেক মানুষ তাকে দেখতে আসছে।’

পুরুষে রূপান্তরিত হওয়া সেলিম রেজা বলেন, আমি মেয়ে হয়েই জন্মগ্রহণ করেছিলাম। তবে যখন থেকে একটু বুঝতে শিখি তখন লক্ষ্য করতাম অন্য মেয়েদের মতো আমার মেয়েলি পরিবর্তন হচ্ছে না। প্রায় ৮ বছর আগে আমার মধ্যে ব্যাপক পরিবর্তন শুরু হলে চিকিৎসকের কাছে গেলে তারা বলেন এটা হরমোনজনিত সমস্যা। হরমোনজনিত হোক বা যেকোনো রোগের জন্য হোক সৃষ্টিকর্তা আমাকে মেয়ে থেকে সম্পূর্ণ পুরুষে রূপান্তরিত করে দিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, ‘আমি বিয়ে করেছি। আমার একটি ছেলেও রয়েছে।

একজন পূর্ণাঙ্গ পুরুষ যেভাবে চলাফেরা করে আমি সেভাবেই চলাফেরা করছি এমন মন্তব্য করেন সেলিম রেজা।

 

 

 

 

 

cbna24-7th-anniversary
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.

twelve − eight =