La Belle Province

কানাডা, ২৭ নভেম্বর ২০২০, শুক্রবার

কমলগঞ্জ মৌলভীবাজারের বিভিন্ন সংবাদ

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি | ২৭ অক্টোবর ২০২০, মঙ্গলবার, ১১:৪৩


কমলগঞ্জ মৌলভীবাজারের বিভিন্ন সংবাদ

কমলগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর খাদ্য সহায়তা প্রদান
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে খাদ্য সহায়তার চাল প্রদান করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) দুপুরে কমলগঞ্জ পৌরসভার আয়োজনে পৌরসভা মিলনায়তনে পৌর এলাকার ৭ ও ৮নং ওয়ার্ডের ১০০ জন হতদরিদ্র সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে দুর্গাপূজা উপলক্ষে খাদ্য সহায়তার চাল প্রদান করা হয়। পৌর মেয়র মো.জুয়েল আহমদের সভাপতিত্বে চাল বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পৌর কাউন্সিলর মো: আনোয়ার হোসেন, রফিকুল ইসলাম রুহেল, গোলাম মুগ্নি মুহিত, মহিলা কাউন্সিলর মুসলিমা বেগম, মোছা: আয়েশা সিদ্দিকা, শিউলি আক্তার শাপলা, সাংবাদিক সাজিদুর রহমান সাজু, প্রনীত রঞ্জন দেবনাথ, এম, এ, মুক্তাদির, যুবনেতা সায়েখ আহমেদ, কমলগঞ্জ পৌরসভার অফিস সহকারী কয়ছর মিয়া, কর নির্ধারক সুব্রত কর প্রমুখ।

কমলগঞ্জে কিশোরীকে ধরে নিয়ে ধর্ষনের অভিযোগ

মৌলভীবাজারে কমলগঞ্জ উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের রাজকান্দি বন এলাকায় ধরে নিয়ে গিয়ে এক কিশোরী (১৪) কে হাত-পা বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে কমলগঞ্জ থানা পুলিশ। কিশোরীকে উদ্ধার করে মৌলভীবাজার হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য প্রেরণ করা হয়েছে।
পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, কমলগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী দক্ষিণ কানাইদাসী গ্রামের এক কিশোরী চাচার বাড়ি থেকে বাড়িতে ফেরার পথে একই গ্রামের বখাটে শাকিল মিয়া তাকে জোর করে হাত-পা বেঁধে ধরে নিয়ে গিয়ে পার্শ্ববর্তী পাহাড়ী টিলায় ধর্ষণ করে। মঙ্গলবার সকালে এলাকাবাসী পাহাড়ী টিলা এলাকায় গেলে সেখানে মেয়েটিকে হাত পা বাঁধা অবস্থায় দেখতে পায়। লোকজন ঘটনাটি ইসলামপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান সুলেমান মিয়াকে জানালে তিনি কমলগঞ্জ থানা পুলিশকে অবহিত করে।
সাবেক চেয়ারম্যান সুলেমান মিয়া জানান, এলাকাবাসীকে সাথে নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মেয়েটিকে বাঁধা অবস্থা থেকে উদ্ধার করে জানতে চাইলে মেয়েটি জানায়, একই গ্রামের শাকিল তাকে ধরে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করেছে। কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুধীন চন্দ্র দাস, এএসআই আনিসুর রহমানসহ পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। পুলিশ মেয়েটিকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে প্রেরণ করেছে। মেয়েটির বাবা কদ্দুছ মিয়া বলেন, তার মেয়েকে জোর পূর্বক তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করা হয়েছে। তিনি এর দৃষ্ঠান্তমূলক শাস্তি দাবী করেন।
কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুধীন চন্দ্র দাস বলেন, মেয়ের বাবা অভিযোগ করলে তদন্ত ক্রমে আইনী পদক্ষেপ নেয়া হবে।

একজন-বীরের-স্মৃতিসৌধ
আজ ৪৯ তম শাহাদৎ বার্ষিকী
বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহী হামিদুর রহমানের রক্তে ভেজা কমলগঞ্জের ধলই সীমান্ত

আজ বুধবার (২৮ অক্টোবর) বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী হামিদুর রহমানের ৪৯ তম শাহাদৎ বার্ষিকী। মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার ধলাই সীমান্তে ১৯৭১ সালের ২৮ অক্টোবর পাক সেনাদের একটি ব্যাঙ্কারে গ্রেনেড হামলা চালিয়ে ফেরার পথে পাক সেনাদের ছোড়া গুলিতে শহীদ হন বীর শ্রেষ্ঠ সিপাহী হামিদুর রহমান। ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে বৃহত্তর সিলেটের মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার ধলই রণাঙ্গনে সম্মুখযুদ্ধে দেশের জন্য জীবন বিসর্জন দিয়েছিলেন ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার খোরদা খালিশপুর গ্রামের সন্তান সিপাহী হামিদুর রহমান। যুদ্ধ অসামান্য বীরত্বের জন্য তাঁকে বীরশ্রেষ্ঠ উপাধিতে ভ‚ষিত করা হয়। মাত্র ১৮ বছর বয়সে শহীদ হওয়া সিপাহী হামিদুর রহমান সাতজন বীরশ্রেষ্ঠ পদকপ্রাপ্ত শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে সর্বকনিষ্ঠ।
১৯৭১ সালের অক্টোবর মাসের শেষদিকে কমলগঞ্জের ধলাই সীমান্ত এলাকায় প্রচন্ড যুদ্ধ চলছিল। চারদিকে চা বাগান, মাঝখানে ধলাই সীমান্ত চৌকি। ধলাই সীমান্ত চৌকি থেকে দক্ষিণ-পূর্ব দিকে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের কমলপুর শহরে ছিল মুক্তিবাহিনীর সাবসেক্টর ক্যাম্প। হামিদুর রহমান প্রথম ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্টের সি কোম্পানির হয়ে ধলই সীমান্তের ফাঁড়ি দখল করার অভিযানে অংশ নেন। সব প্রস্তুতি নিয়ে ২৮ অক্টোবর ভোর রাতে লেফটেন্যান্ট কাইযুমের নেতৃত্বে একটি দল পাক সেনাদের উপর চতুর্দিক থেকে সাঁড়াশি আক্রমন চালায়। ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের ১২৫ জন মুক্তিযোদ্ধা যুদ্ধে অংশ নেয়। ব্যাপক গোলাবর্ষণে পাক সেনাদের ক্যাম্পে আগুন ধরে যায়। সামনে দুই প্লাটুন ও পেছনে এক প্লাটুন সৈন্য অবস্থান নিয়ে অগ্রসর হতে থাকে শক্র অভিমুখে। শক্রু অবস্থানের কাছাকাছি এলে একটি  হয়। মুক্তিবাহিনী সীমান্ত ফাঁড়ির খুব কাছে পৌঁছে গেলেও ফাঁড়ির দক্ষিণ-পশ্চিম প্রান্ত হতে পাকিস্তানী সেনাবাহিনীর মেশিনগানের গুলিবর্ষণের জন্য আর অগ্রসর হতে পারছিলো মুক্তিবাহিনী পাকিস্তান বাহিনীর মেশিনগান পোস্টে গ্রেনেড হামলার সিদ্ধান্ত নেয়। গ্রেনেড ছোড়ার দায়িত্ব দেওয়া হয় হামিদুর রহমানকে। তিনি পাহাড়ি খালের মধ্য দিয়ে বুকে হেঁটে গ্রেনেড নিয়ে আক্রমণ শুরু করেন। দুটি গ্রেনেড সফলভাবে মেশিনগান পোস্টে আঘাত হানে, কিন্তু তার পরপরই হামিদুর রহমান গুলিবিদ্ধ হন। সেই অবস্থাতেই তিনি মেশিনগান পোস্টে গিয়ে সেখানকার দুইজন পাকিস্তানী সৈন্যের সাথে হাতাহাতি যুদ্ধ শুরু করেন। এভাবে আক্রমণের মাধ্যমে হামিদুর রহমান এক সময় মেশিনগান পোস্টকে অকার্যকর করে দিতে সক্ষম হন। এই সুযোগে ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের মুক্তিযোদ্ধারা বিপুল উদ্যোমে এগিয়ে যান, এবং শক্রু পাকিস্তান সেনাবাহিনীকে পরাস্ত করে সীমানা ফাঁড়িটি দখল করতে সমর্থ হন। কিন্তু হামিদুর রহমান বিজয়ের স্বাদ আস্বাদন করতে পারেননি, ফাঁড়ি দখলের পরে মুক্তিযোদ্ধারা শহীদ হামিদুর রহমানের মৃতদেহ উদ্ধার করে। হামিদুর রহমানের মৃতদেহ সীমান্তের অল্প দ‚রে ভারতীয় ভ‚খন্ডে ত্রিপুরা রাজ্যের হাতিমেরছড়া গ্রামের স্থানীয় এক পরিবারের পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়।
১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের পর ধলই সীমান্ত ফাঁড়ির বিজিবির (তৎকালীন বিডিআর) পক্ষে স্থানীয়ভাবে একটি নাম ফলক স্বরুপ স্মৃতিস্তম্ভ¢ স্থাপন করা হয় বিজিবির সীমান্ত ফাঁড়ির সামনে। ২০০৬ সালে বাংলাদেশ সরকারের তৎকালীন অর্থ ও পরিকল্পনামন্ত্রী মরহুম এম সাইফুর রহমান ধলাই সীমান্ত এলাকায় বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহী হামিদুর রহমানের স্মৃতি সৌধের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করে ধলই সীমান্তে ধলই চা বাগানের জমি অধিগ্রহন করে একটি স্মৃতিসৌধ নির্মাণ করে দিয়েছিলেন। সে সময় স্থানীয় সাংবাদিকদের লিখিত আবেদন, সংবাদ প্রকাশে ও এলাকাবাসীর দাবিতে ২০০৭ সালের ২৭শে অক্টোবর বাংলাদেশের তত্ত¡াবধায়ক সরকার হামিদুর রহমানের দেহ বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নেয়। সেই অনুযায়ী ২০০৭ সালের ১০ই ডিসেম্বর বাংলাদেশ রাইফেলসের একটি দল ত্রিপুরা সীমান্তে হামিদুর রহমানের দেহাবশেষ গ্রহন করেন এবং যথাযোগ্য মর্যাদার সাথে কুমিল্লার বিবিরহাট সীমান্ত দিয়ে শহীদের দেহাবশেষ বাংলাদেশে নিয়ে আসা হয়। ১১ই ডিসেম্বর রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমানকে ঢাকার বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে সমাহিত করা হয়।
২৮ অক্টোবর হামিদুর রহমানের শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে কমলগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড, বিজিবি ও ব্যাটেলিয়ন কমান্ড তাঁর স্মৃতিসৌধে পুষ্পার্পন করে শ্রদ্ধা নিবেদন করে। তবে এ দিবসে কমলগঞ্জে আলোচনা সভার কোন উদ্যোগ নেওয়া হয়না। আজ বুধবারও কমলগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড, বিজিবি ও ব্যাটেলিয়ন কমান্ড বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহী হামিদুর রহমানের স্মৃতিসৌধে পুষ্পার্পন করবে।
নোট: ছবি সংযুক্ত।

কমলগঞ্জে অবৈধ বালু জব্দ করে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে অবৈধভাবে বালু পাচারের দায়ে এক ব্যক্তিকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা এবং ১০০ ঘনফুট বালু জব্দ করা হয়েছে। মঙ্গলবার ২৭ অক্টোবর দুপুরে

(ভুমি) ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে এ জরিমানা প্রদান করেন।
জানা যায়, কমলগঞ্জ উজেলার সদর ইউনিয়নের উত্তর তিলকপুর এলাকায় ট্রাক যোগে অবৈধভাবে বালু পাচারের সময় খবর পেয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) নাসরিন চৌধুরী নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ১০০ ঘনফুট বালুসহ ট্রাক আটক করা হয়। এ সময় বালু পাচারের অভিযোগে জমির মিয়াকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং তাৎক্ষনিক জব্দকৃত বালু ১ হাজার টাকা নিলামে বিক্রি করা হয়।
কমলগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) নাসরিন চৌধুরী অবৈধভাবে বালু জব্দ ও জরিমানার বিষয়টি সত্যতা নিশ্চিত করেন।

সিএ/এসএস


সর্বশেষ সংবাদ

দেশ-বিদেশের টাটকা খবর আর অন্যান্য সংবাদপত্র পড়তে হলে CBNA24.com

সুন্দর সুন্দর ভিডিও দেখতে হলে প্লিজ আমাদের চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

Facebook Comments

চতুর্থ বর্ষপূর্তি

cbna 4rth anniversary book

Voyage

voyege fly on travel

cbna24 youtube

cbna24 youtube subscription sidebar

Restaurant Job

labelle ads

Moushumi Chatterji

moushumi chatterji appoinment
bangla font converter

Sidebar Google Ads

error: Content is protected !!