দেশের সংবাদ

কমলগঞ্জে ফের কৃষকদের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিল যুবলীগ নেতাকর্মী

কমলগঞ্জে ফের কৃষকদের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিল যুবলীগ নেতাকর্মী

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি/ ২৮ এপ্রিল, ২০২১ । মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের শমশেরনগর ইউনিয়নের সতিঝিরগাঁও এলাকায় ২য় দিনের মতো ৩ জন কৃষকের ৪ কিয়ার জমির ধান কেটে দিয়েছেন উপজেলা যুবলীগের নেতাকর্মীরা। কৃষকদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনার বাস্তবায়ন ঘটাতে কেন্দ্রীয় যুবলীগের নির্দেশে তারা এ কার্যক্রম পরিচালনা করেন।

বুধবার (২৮ এপ্রিল) ধান কাটা কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ রেজাউল রহমান সুমন। সকাল সাড়ে ১০টায় কমলগঞ্জের শমশেরনগর ইউনিয়নের সতিঝিরগাঁও এলাকায় কৃষক ক্বারী ফজলুল হক, আং রশিদ, অপু মিয়ার ৪ কিয়ার জমির ধান কেটে বাড়িতে পৌঁছে দেন উপজেলা যুবলীগের নেতাকর্মীরা। যুবলীগের এমন সহযোগিতায় আবেগআপ্লুত হয়ে পড়েন কৃষক ক্বারী ফজলুল হক, আং রশিদ ও অপু মিয়া।

যুবলীগের নেতাকর্মীরা পাকা ধান কেটে দেওয়ায় কৃষক ক্বারী ফজলুল হক, আং রশিদ, অপু মিয়া বলেন, ‘ধান কাটার উপযুক্ত সময় হলেও করোনার কারণে শ্রমিক সংকটে পড়েছি। এলাকায় যে শ্রমিক পাওয়া যায় তাদের মজুরি বেশি হওয়াতে ক্ষেতের ধান পাকার পরও তা কাটতে না পেরে ক্ষতির শঙ্কায় ছিলাম। যেখানে শ্রমিকের অভাবে জমির পাকা ধান কাটা নিয়ে দুশ্চিন্তায় ভুগছিলাম আমরা, সেখানে প্রায় দুই ঘণ্টার মধ্যে যুবলীগের নেতাকর্মীরা জমির সব ধান কেটে বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছেন।’

কমলগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক ও পৌর মেয়র মো. জুয়েল আহমেদ বলেন, ‘করোনার ২য় ঢেউয়ে শ্রমিক ও অর্থ সংকটের কারণে ৪ কিয়ার জমির পাকা ধান কাটতে পারছিলেন না শমশেরনগর ইউনিয়নের সতিঝিরগাঁও এলাকায় কৃষক ক্বারী ফজলুল হকসহ তিন কৃষক। ক্ষেতেই ধান নষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছিল। আমি খবর পেয়ে ২য় দফায় বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় যুবলীগের প্রায় অর্ধশতাধিক নেতাকর্মীকে সঙ্গে নিয়ে সেখানে যাই। আমরা ওই তিন কৃষকের ৪ কিয়ার জমির ধান কেটে বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছি।’

তিনি বলেন, ‘ধান কাটা কর্মস‚চিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ রেজাউল রহমান সুমন। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল মালিক বাবুল, সায়েখ আহমেদ, সদস্য আলাল মিয়া, জহিরুল ইসলাম নান্নু, সাইফুল ইসলামসহ যুবলীগের অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী। ধান কাটা শেষ হলে আমরা সবাই মাথায় করে ধান নিয়ে ওই তিন কৃষকের বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘করোনার এই দুর্যোগকালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কৃষকদের পাশে দাঁড়ানোর যে নির্দেশনা দিয়েছেন, তার বাস্তবায়ন ঘটাতেই কেন্দ্রীয় যুবলীগের নির্দেশে আমরা উপজেলা যুবলীগ এ ধান কাটা কর্মস‚চি পালন করছি। যুবলীগের ধান কাটার কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

এর আগে গত ২৫ এপ্রিল কমলগঞ্জ পৌর এলাকার খুশালপুর গ্রামের ৩ কৃষকের এক একর জমির ধান কেটে দিয়েছিল উপজেলা যুবলীগের নেতাকর্মীরা।

কমলগঞ্জে চা শ্রমিককে কুপিয়ে হত্যা  ৪ জন গ্রেফতার

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী চাম্পারায় চা বাগানে এক চা শ্রমিককে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৬টায় চা বাগানের ২৫ নম্বর সেকশনে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কমলগঞ্জ থানা পুলিশ ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে।

স্থানীয়ভাবে জানা যায়, গত সোমবার আম পাড়া নিয়ে চাম্পারায় চা বাগানের সুমন গোয়ালার সাথে তার চাচা মনোহর গোয়ালা ও তার ছেলেদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এ ঘটনায় সুমন গোয়ালা মঙ্গলবার চা বাগান অফিসে গিয়ে বিচারপ্রার্থী হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মনোহর গোয়ালা এবং তার দুই ছেলে বিশ্বজিত গোয়ালা ও সঞ্চিত গোয়ালা একা পেয়ে দা ও কুড়াল দিয়ে উপর্যুপরি কুপিয়ে সুমন গোয়ালা (৩২) কে জখম করে। পরে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে কমলগঞ্জ থানার ওসি ইয়ারদৌস হাসান ও ওসি তদন্ত সোহেল রানার নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করেন। নিহত সুমন গোয়ালা চাম্পারায় চা বাগানের বড় লাইনের চা শ্রমিক সাধু গোয়ালার ছেলে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে নিহত সুমন গোয়ালার ভাই সঞ্জু গোয়ালা বাদী হয়ে তিনজনের নামে উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরো ২/৩জনকে আসামী করে কমলগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

ইসলামপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পূর্ব বিরোধের জের ধরে পরিকল্পিতভাবে এ হত্যাকান্ড সংঘটিত হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তাদের পারিবারিক বিরোধ ছিল।

কমলগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) সোহেল রানার নেতৃত্বে এসআই মাহমুদুল হাসান, এএসআই আনিছুর রহমান, আফসার হামিদসহ একদল পুলিশ বুধবার (২৮ এপ্রিল) ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার নোয়াপড়া চা বাগান এলাকায় অভিযান চালিয়ে ভগ্নিপতি দিপক গোয়ালার বাড়ি থেকে দুই সহোদর বিশ্বজিৎ গোয়ালা (২৫), সঞ্চিত গোয়ালা (৩২) কে গ্রেফতার করে। পরে বিশাল গোয়ালা (২২) ও সুজন অলমিক (৩২) কে কুরমা চা বাগান থেকে গ্রেফতার করে।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে কমলগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) সোহেল রানা বলেন, এ ঘটনায় কমলগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে। পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। এ মামলায় পুলিশ গ্রেফতারকৃত ৪ জনকে বুধবার দুপুরে মৌলভীবাজার আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।


সর্বশেষ সংবাদ
দেশ-বিদেশের টাটকা খবর আর অন্যান্য সংবাদপত্র পড়তে হলে CBNA24.com
সুন্দর সুন্দর ভিডিও দেখতে হলে প্লিজ আমাদের চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন
আমাদের ফেসবুক পেজ   https://www.facebook.com/deshdiganta.cbna24 লাইক দিন এবং অভিমত জানান
আপনার মতামত দিন