জীবন ও স্বাস্থ্য

১৫ দিনে ওজন কমানোর চ্যালেঞ্জ

ওজন কমানো

অল্প সময়ের মধ্যে ওজন কমাতে চান অনেকে। অল্প সময়ে ওজন কমাতে চাইলে কিছু নিয়ম মেনে চলতে হয়। আমরা আমাদের জীবন যেভাবেই পরিচালনা করি না কেন, আমাদের  ইচ্ছার তালিকায় একটি জিনিস স্থির রাখা উচিৎ। আর তা হলো কিভাবে ফিট এবং স্বাস্থ্যকর থাকা যায়।

সুতরাং আপনি যদি স্বাস্থ্যকর অভ্যাস পালনের জন্য ২০১৯ এর জন্য কঠোর চেষ্টা করে থাকেন, তাহলে এটা খুবই ভালো কথা। আসুন চেষ্টা করি ভালোভাবে বছরটি শেষ করতে। আসুন মাত্র ১৫ দিনের স্বাস্থ্যকর পরামর্শ অনুসরণ করে ট্র্যাক ফিরে পেতে পারি-

একটি অভ্যাস গঠনের জন্য আপনাকে সর্বনিম্ন ১৫ দিনের প্রয়োজন। এই পরীক্ষাটি আমাদের জন্য জীবন বদলে দিতে পারে।

•আমরা সকলেই জানি আমাদের সামগ্রিক সুস্থতার জন্য পানি গুরুত্বপূর্ণ, তবুও আমরা প্রতি দিন ব্যস্ততার সাথে পানি পানে আপোস করি। আমরা সকলেই আমাদের পানির বোতলগুলি ভর্তি করতে এবং খালি হওয়ার পর পুনরায় পানি ভর্তি করতে খুব অলসতা করি। যার ফলে কয়েক ঘণ্টা তৃষ্ণার্ত অবস্থায় থাকছি। কিন্তু আপনার জন্য পরামর্শ হলো- প্রথমে, ঘুম থেকে ওঠার সাথে সাথে কমপক্ষে ২-৩ গ্লাস পানি পান করুন। সুবিধার জন্য আপনি এতে লেবু এবং এক চিমটি দারচিনি যোগ করতে পারেন।

•আপনি যেখানেই যান না কেন আপনার ব্যাগে সবসময় বোতলে পানি রাখুন। মানে তৃষ্ণার্ত হবার সাথে সাথে আপনাকে পানি পান করতে হবে।

•তৃতীয়ত, হয়তো আপনি ভুলো মনা। ভুলে যেতেই পারেন। কিন্তু পানি পানের কথা ভুলবে চলবে কীভাবে? খাবার খাওয়ার আগে কেউ  আপনাকে পানি পান করার কথা মনে করিয়ে দিতে পারে, বা সারা দিন জুড়ে পর্যাপ্ত পানি পান করার মনে করিয়ে দিতে অ্যাপসগুলো ডাউনলোড করে রাখুন।

•প্রতি ১-২  ঘণ্টা পরে, আপনার আসন থেকে উঠে ওয়াটার কুলারটিতে যান। এটি কেবল আপনাকে পানি খাওয়ানোর বিষয়টিই নিশ্চিত করবে না তবে আপনি নিয়মিত স্ট্রো গ্রহণও নিশ্চিত করবেন।

সবসময়, আমরা পুনরাবৃত্তি করি, যদি আমরা প্রচুর তৃষ্ণার্ত হই তবে পানি খেতে হবে। আমরা প্রায়শই ক্ষুধার্ত হিসাবে তৃষ্ণাকে ভুল বুঝি যা অপ্রয়োজনীয় ওজন বাড়িয়ে তুলতে পারে।

১৫ দিনের ওজন কমানোর চ্যালেঞ্জ দুই পর্বে ভাগ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় পর্ব প্রকাশ করা হবে

আমরা সবাই আমাদের প্রতিদিনের ডায়েটে ফল এবং শাকসবজির গুণাগুণ সম্পর্কে জানি। কিন্তু যান্ত্রিক জীবনের ব্যস্ততায় আমরা প্রায়শই ভুলে যাই। বাধ্য হয়ে দ্রুত হাতের কাছে পাওয়া খাবারগুলো খেয়ে কোনোরকম কাজ সম্পন্ন করি। কিন্তু এটা মোটেও আপনাকে ফিট রাখবে না। আপনি অনুসরণ করুন আমাদের পরামর্শগুলো। এবং ওজন কমানোর চ্যালেঞ্জ রক্ষায় কঠিনভাবে মেনে চলুন।

শীতকালে বাজারে প্রচুর শাক সবজি পাওয়া যায়। শাক-সবজি বেশি পরিমাণ খাওয়ার উপযুক্ত সময় হলো এই শীতকাল।  আপনি ইতোমধ্যে আপনার ডায়েটে বিভিন্ন ধরণের শাকসবজি অন্তর্ভুক্ত করে থাকেন তবে আপনার জন্য পরামর্শ হলো ডায়েটে রঙিন শাকসবজি অন্তর্ভুক্ত করুন।

বেল মরিচ, ব্রকলি, পালং শাক, টমেটো, গাজর,  মটরশুটি তালিকায় নিন। আপনার প্রতিদিনের ডায়েটের পরিকল্পনার সবচেয়ে সহজ উপায় হলো আপনার খাবারটি এমনভাবে পরিকল্পনা করুন যাতে আপনি প্রতিদিন ন্যূনতম ৫ টি শাকসবজি খেতে পারেন।

এছাড়াও কমলা, পেয়ারা, পেঁপে এবং আরও অনেক কিছুতে ভোজের এটাই কিন্তু সেরা সময়। এছাড়াও এক বারে একটি করে ফল খান। হয়তো আপনার খাবার তালিকায় অনেক ফল থাকতে পারে। তবে ভালো হজম শক্তি ও ভালো ফলাফলের জন্য একবারে একটি ফল রাখা ও সেটি একবারে নিঃশেষ করার পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন (WHO) এর মতে, ১৫ দিনের এই ক্যাম্পেইনে হৃদরোগ, স্ট্রোক এবং এমনকি কিছু ধরনের ক্যান্সারের মতো স্বাস্থ্য সমস্যার ঝুঁকি কমানোর  করার জন্য দিনে সর্বনিম্ন ৪০০ গ্রাম ফল এবং শাকসব্জি রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়।

আপনি এই স্বাস্থ্যকর অভ্যাসটি শুরু করার সময় নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনি সারা দিন পর্যাপ্ত পানি পান করছেন। এবং  ১৫ দিনে ওজন কমানোর চ্যালেঞ্জ এর প্রথম অংশ মনোযোগ সহকারে মাথায় রেখেছেন। ভুলে গেলে পড়ে নিতে পারেন।

টাইমস অফ ইন্ডিয়া অবলম্বনে ফয়সাল রহমান looking-for-a-job

সংবাদটি শেয়ার করুন
cbna24-7th-anniversary

Leave a Reply

Your email address will not be published.

4 × one =