পত্রিকার পাতা থেকে

মুজিববর্ষ উদ্‌যাপন গুরুত্ব পাবে মোদির সফরে

মোদি বাংলার জনগনের প্রত্যাশা পূরণ করবেন বলে আশা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

শ্রিংলা আসছেন আজ মুজিববর্ষ উদ্‌যাপন গুরুত্ব পাবে মোদির সফরে

ঢাকার বৈঠকে দিল্লি পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার ইঙ্গিত

মোদি বাংলার জনগনের প্রত্যাশা পূরণ করবেন বলে আশা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

মুজিববর্ষ উদ্‌যাপন গুরুত্ব পাবে মোদির সফরে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আসন্ন ঢাকা সফরে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদ্‌যাপনকেই গুরুত্ব দেবে বাংলাদেশ। পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন গতকাল রবিবার বিকেলে ঢাকায় এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানিয়েছেন। তিনি আরো জানান, মোদির ঢাকায় আসার তারিখ এখনো চূড়ান্ত হয়নি। ১৭ মার্চ সকালে মোদি ঢাকায় পৌঁছাতে পারেন।

এদিকে গতকাল অন্য একটি অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, নরেন্দ্র মোদিকে অতিথি হিসেবে বাংলাদেশে সর্বোচ্চ সম্মান দেওয়া হবে।

অন্যদিকে মোদির আসন্ন সফর এবং দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করতে আজ সোমবার সকালে দুই দিনের সফরে ঢাকায় আসছেন ভারতের পররাষ্ট্রসচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা।

পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন ভারতের পররাষ্ট্রসচিবের সফর প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের বলেন, ‘পররাষ্ট্রসচিব হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর তিনি (হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা) প্রথমে প্রতিবেশী দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ সফর করছেন। তিনি আগে বাংলাদেশে ভারতের হাইকমিশনার ছিলেন। সুতরাং বাংলাদেশের ব্যাপারে তাঁর বোঝাপড়া ভালো আছে।’

মাসুদ বিন মোমেন বলেন, ‘আমার জানা মতে, তাঁর (শ্রিংলার) সময় দুই দেশের সম্পর্ক সুসংহতকরণের ব্যাপারে বেশ কিছু ভালো কাজও হয়েছিল। সুতরাং তিনি এসে হয়তো এখন বর্তমানে সম্পর্ক কী অবস্থায় আছে, বিভিন্ন চুক্তি ও বোঝাপড়া যেগুলো হয়েছিল সেগুলো এখন কোন পর্যায়ে আছে সেগুলো হয়তো আমরা দ্রুত একটি পর্যালোচনা, আলোচনা করতে পারি।’

পররাষ্ট্রসচিব বলেন, ‘আগামী ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। সেই সফরসংক্রান্ত কিছু আলোচনাও করব আশা করছি।’

দিল্লিতে গত সপ্তাহে সহিংসতার পর এ দেশের বিভিন্ন মহল থেকে মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানানোর বিরোধিতার বিষয়ে সরকারের অবস্থান জানতে চাইলে পররাষ্ট্রসচিব বলেন, ‘আমরা একটি অনুষ্ঠান করব বড় করে। যেহেতু আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় আমাদের সবচেয়ে বড় প্রতিবেশী রাষ্ট্র হিসেবে ভারতের একটি বিশাল ভূমিকা ছিল, সুতরাং সেই পরিপ্রেক্ষিতে আমরা চাইব যে ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী যিনি আছেন তিনিও আমাদের অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন।’

মোদির আসন্ন সফরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় আলোচনার বিষয়গুলো জানতে চাইলে পররাষ্ট্রসচিব বলেন, ‘মুজিববর্ষের উদ্‌যাপনকেই আমরা বেশি গুরুত্ব দেব। এরই মধ্যে যেসব প্রকল্প হয়েছে সেগুলো উদ্বোধনের একটি বিষয় থাকতে পারে। কিছু সমঝোতা স্মারক যেগুলো হয়তো তৈরি আছে আমরা সেগুলো সই করতে পারি। এ বিষয়গুলো হয়তো আলোচনার টেবিলে থাকবে। কিন্তু মূল দৃষ্টি থাকবে আমাদের জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠান।’

দিল্লির সহিংসতায় সরকারের উদ্বেগ আছে কি না জানতে চাইলে পররাষ্ট্রসচিব বলেন, ‘আমরা দেখছি। আমরা চাইব যে এটি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় হিসেবে সমাধান বা নিয়ন্ত্রণে রাখার চেষ্টা করবে।’

এদিকে ভারতের পররাষ্ট্রসচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা আজ সকালে ঢাকায় পৌঁছার পরপরই স্থানীয় একটি হোটেলে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক বিষয়ে আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিবেন। এরপর তিনি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেনের সঙ্গে সাক্ষাৎ এবং পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেনের সঙ্গে বৈঠক করবেন। সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তিনি সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে পারেন। সফর শেষে আগামীকাল মঙ্গলবার তিনি ঢাকা ছাড়বেন।

ঢাকার বৈঠকে দিল্লি পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার ইঙ্গিত

মোদি বাংলার জনগনের প্রত্যাশা পূরণ করবেন বলে আশা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

শামীমাকে বাংলাদেশে আসতে দেয়া হবে না

দিল্লিতে সাম্প্রতিক সহিংসতার জেরে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আগমনের বিরোধিতার প্রেক্ষাপটে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন অতিথির কাছে বাংলাদেশের ’জনগণের প্রত্যাশা ও ইচ্ছার’ প্রতিফলন চান। তবে জনগনের প্রত্যাশা বা ইচ্ছার বিষয়ে মন্ত্রী স্পষ্ট করে কিছু বলেননি। মোদির ১৭ই মার্চের সফরসহ দুই দেশের মধ্যকার ইস্যুগুলো নিয়ে আলোচনার আজ ঢাকা আসছেন ভারতের নব নিযুক্ত পররাষ্ট্র সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা। দিনের শুরুতে তিনি বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক বিষয়ক একটি সেমিনারে বক্তৃতা করবেন। দুপুরের পর তিনি পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক বৈঠক করবেন। ওই বৈঠকে দিল্লি পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার আভাস মিলেছে।
পররাষ্ট্র মন্ত্রী যা বলেছেন: রোববার রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবনের অনুষ্ঠান শেষে মোদীর আগমন নিয়ে বাংলাদেশে প্রতিবাদ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী ড. মোমেন বলেন, আমরা আমাদের নিয়মে মেহমানদারি যা করার তা করব, সম্মান আমরা দিব। মেহমান যিনি রাজি হয়েছেন আসবার, মেহমানকে আমরা সম্মান দিব।

তবে আমরা এটুকু আশা করব, আমাদের মেহমানরা আমাদের বাংলাদেশের জনগণের প্রত্যাশা এবং জনগণের ইচ্ছা এগুলোর ব্যাপারে একটা ভালো অবস্থান নেন।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী সাড়ম্বরে উদযাপন করবে বাংলাদেশ; বছরব্যাপী এই অনুষ্ঠানমালা শুরু হবে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন আগামী ১৭ মার্চ।
মুজিববর্ষের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রনেতাদের আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে, যার মধ্যে প্রতিবেশী ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদীও রয়েছেন।

এর মধ্যে ভারতে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদ ঘিরে গেল সপ্তাহে রাজধানী দিল্লিতে হিন্দু-মুসলিম সহিংসতায় ৪০ জনের বেশি মানুষ নিহত হন। মুসলমানদের ওপর নির্যাতনের খবর সংবাদমাধ্যমে আসার পর মোদীর ঢাকা সফর বাতিলের দাবি তুলেছে বিভিন্ন সংগঠন।
বিজেপি নেতা নরেন্দ্র মোদীকে ‘সাম্প্রদায়িক আখ্যা’ দিয়ে তারা বলছেন, মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে আনা হলে বঙ্গবন্ধুকে অপমান করা হবে। তবে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদী ওই অনুষ্ঠানে আসছেন জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন বলেন, ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নিশ্চিত করেছেন আসবেন। আমরা দাওয়াতও দিয়েছি।
আগামীকাল (আজ)ভারতের পররাষ্ট্র সচিব আসবেন বিস্তারিত আলাপ করার জন্য। বাকি অনেক কিছু নিয়ে আলাপ হবে। দিল্লির সংঘাত বিষয়ে আনুষ্ঠানিক কোনো বিবৃতি দেওয়া হবে কি না- এ প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আমরা বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছি।

আরও পড়ুনঃ

সর্বশেষ সংবাদ     
কানাডার সংবাদ
দেশ-বিদেশের টাটকা খবর আর অন্যান্য সংবাদপত্র পড়তে হলে cbna24.com
সুন্দর সুন্দর ভিডিও দেখতে হলে প্লিজ আমাদের চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

cbna24-7th-anniversary
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.

1 × 1 =