জাতিসংঘ দেশের সংবাদ ফিচার্ড

ঐতিহাসিক ২৫ সেপ্টেম্বর

ঐতিহাসিক ২৫ সেপ্টেম্বর

ঐতিহাসিক ২৫ সেপ্টেম্বর। এই দিনে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রথমবারের মতো জাতিসংঘে বাংলায় ভাষায় ভাষণ দেন। ১৯৭৪ সালে বাংলাদেশ রাষ্ট্রের ও বাংলা ভাষার এই উজ্জ্বল দিনেই বাংলায় দেয়া বঙ্গবন্ধুর ভাষণের মাধ্যমে জাতিসংঘের সদস্য পৃথিবীর সব দেশ আনুষ্ঠানিকভাবে জানতে পারে বাংলা ভাষার কথা, জানতে পারে বাংলা ভাষাভাষী বাঙালি জাতির জন্য রয়েছে একটি স্বাধীন সার্বভৌম দেশ! তার নাম বাংলাদেশ। আর এই দিনটিকে নিউইয়র্ক স্টেট ২০১৯ সাল থেকে ‘বাংলাদেশি ইমিগ্র্যান্ট ডে’ হিসেবে পালন করে আসছে।

এই সিদ্ধান্ত গ্রহণের মধ্য দিয়ে নিউইয়র্কের বাংলাদেশি-আমেরিকানদের এক ধরনের অগ্রাধিকার সূচিত হলো; যুক্তরাষ্ট্রে অন্যান্য অগ্রসর জাতির ইমিগ্র্যান্টদের সঙ্গে উজ্জ্বল পক্ষভুক্ত হলো বাংলাদেশিরাও। উল্লেখ্য, নিউইয়র্ক রাজ্যের সিনেটে একটি সেশনে আলোচনার পর আইন পরিষদে এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এ বছর তৃতীয়বারের মতো সিনেটের আইন পরিষদ কর্তৃক নবায়ন হলো।

যুক্তরাষ্ট্র তথা নিউইয়র্কের মূলধারায় বাংলাদেশি সমাজ বিনির্মাণে যাদের অবদান রয়েছে তাদের উপস্থিতিতে ২৫ সেপ্টেম্বর শনিবার বিকেল ৫টায় জ্যাকসন হাইটসের জুইশ সেন্টারে দিনটির তাৎপর্য তুলে ধরে এক বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে মুক্তধারা। বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আব্দুল মোমেন প্রধান অতিথি থাকবেন। মূল প্রবন্ধ পাঠক করবেন জাতিসংঘে কর্মরত বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ড. নজরুল ইসলাম।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বাংলাদেশ থেকে আগত সংসদ সদস্য ও সাবেক এফবিসিআই সভাপতি এমডি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দীন, বর্তমান এফবিসিসিআই সভাপতি এমডি জসিম উদ্দীন, আওয়ামী লীগ নেতা আবদুস সোবহান গোলাপ, মুক্তিযোদ্ধা তাজুল ইমাম, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী রথীন্দ্রনাথ রায় যোগ দেবেন। উপস্থিত থাকবেন নিউইয়র্ক স্টেট সিনেটর, কাউন্সিলম্যান, আমেরিকার মূলধারায় নবনির্বাচিত বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শাহানা হানিফ, সোমা  সাঈদ প্রমুখ। স্বাগত বক্তব্য রাখবেন বিশ্বজিত সাহা।  সভাপতিত্ব করবেন  মুক্তিযোদ্ধা ডা. জিয়াউদ্দীন আহমেদ।

উল্লেখ্য, সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যেদিন জাতিসংঘে ভাষণ দিয়েছিলেন সেই ২৫ সেপ্টেম্বরকে ২০২১ সালের জন্য ধারাবাহিকভাবে তৃতীয় বছরের মতো ‘বাংলাদেশি ইমিগ্র্যান্ট ডে’ ঘোষণা করা হয়েছে। আমেরিকার মূলধারায় জাতির জনকের জন্মশতবার্ষিকী ও বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে মুক্তধারার বিভিন্ন কর্মকা্লের মধ্যে আরেকটি যোগ হলো তৃতীয়বারের মতো নিউইয়র্ক স্টেট সিনেট এই বিলটি পাস করা।

গত ২১ জানুয়ারি মুক্তধারা ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও বিশ্বজিত সাহা সিনেটর স্টেভেস্কি দিয়ে বিলটি নিউইয়র্ক স্টেটের আইন পরিষদে উত্থাপন করেন। ২৬ জানুয়ারি সর্বসম্মতভাবে বিলটি পাস হয়। সিনেট রেজ্যুলেশন নম্বর জে ০০১৯৭। এ উপলক্ষে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ডাক টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় ২০২১ সাল থেকে স্মারক ডাকটিকিট প্রকাশ করে আসছে।

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ-বিদেশের টাটকা খবর আর অন্যান্য সংবাদপত্র পড়তে হলে CBNA24.com

সুন্দর সুন্দর ভিডিও দেখতে হলে প্লিজ আমাদের চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

আমাদের ফেসবুক পেজ   https://www.facebook.com/deshdiganta.cbna24 লাইক দিন এবং অভিমত জানান

আপনার মতামত দিন