সাহিত্য ও কবিতা

অশনি সংকেত! |||| বিশ্বজিৎ মানিক


অশনি সংকেত! |||| বিশ্বজিৎ মানিক

শারদীয় দুর্গা পুজোর – আজ হলো ষষ্ঠী
ভোর থেকেই শুরু হলো – অঝোরে বৃষ্টি
অকালের বৃষ্টিতে – মনে পড়ে ভাটা
তাই আজ সকালে – হলো না তো হাঁটা।

আশা ছিল হেঁটে হেঁটে – দেখে নেবো মণ্ডপ
অসময়ে কেন শুরু – বৃষ্টির তাণ্ডব?
কল্পনা ছিল যা তা – পরে গেল বাদ
প্রকৃতি বিরূপ হলে – কে মিটাবে সাধ?

অফিসটা শেষ করে – চলে যাবো বাড়ি
বাড়ি যেতে দিতে হবে – বহু পথ পাড়ি
শ্বশুরের দেশে পুজো – হবে না তো দেখা
কপালেতে ছিল বুঝি – এই মোর লেখা।

স্বজনেরা বলে সবে – থেকে যাও এবার
সখ ছিল সাথে নিয়ে – পাড়া বেড়াবার
আমাদের পুজোগুলো – ঘুরে ফিরে দেখো
জোর দিয়ে বলে সবে – এখানেই থাকো।

স্ত্রী কন্যা আছে মোর – পথ পানে চেয়ে
সপ্তমীতে বের হবে – আমাকে যে নিয়ে
তাদেরে কিভাবে বলো – ছেড়ে আমি থাকি
কার কথা ফেলে আজ – কার কথা রাখি?

শুরু হলো দেশে আজ – কতো অনাচার
পড়ে গেছে ধুম যেন – মুর্তি ভাঙ্গার
প্রতিদিন ছাপা হয় – কাগজের পাতায়
প্রগতির বুলবুলি – গেলো আজ কোথায়?

সংবিধান নিয়ে যারা – করে মাতামাতি
চাপাবাজী পালটে যায় – কেন রাতারাতি?
সংবিধানে লেখা যাহা – একচল্লিশ ধারায়
পদতলে ফেলে কেন – পাড় পেয়ে যায়?

সামাজিক যোগাযোগ – হিংসায় ভরা
অশালীন কথাগুলো – লেখে যেন কারা?
আগেকার দিনে কিছু – হতোনা এসব
রীতিনীতি মেনে হতো – পালিত উৎসব।

ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ির – ছিলোনা রেওয়াজ
আজ তবে কেন হয় – কর্কশ আওয়াজ
আওয়াজের চাপে লঘুর – অষ্টাগত প্রাণ
কিভাবে যে রাখা যাবে – ধরে রাখা মান?

২২/১০/২০২০ খ্রিস্টাব্দ।
আপনার মতামত দিন