বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী

বাণিজ্যিক উদ্দেশে মুজিববর্ষের লোগো ব্যবহার করা যাবে না

বাণিজ্যিক উদ্দেশে মুজিববর্ষের লোগো ব্যবহার করা যাবে না

বাণিজ্যিক উদ্দেশে মুজিববর্ষের লোগো ব্যবহার করা যাবে না ।।  জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর লোগো সরকারি ও বেসরকারিভাবে সবাই ব্যবহার করতে পারবে। কিন্তু কেউ এই লোগো বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহার করতে পারবে না। সিগারেট, অ্যালকোহল ও আগ্নেয়াস্ত্রে মুজিববর্ষের লোগো ব্যবহার করা যাবে না। একইসঙ্গে কিভাবে লোগোটি ব্যবহার করা যাবে তার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির পক্ষ থেকে এমন তথ্য জানানো হয়েছে।

আজ রবিবার বাস্তবায়ন কমিটির মিডিয়া সেল থেকে পাঠানো বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, সরকারি, বেসরকারি ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠান মুজিববর্ষ সম্পর্কিত যে সকল ডিজাইন ও স্মারক তৈরি করবে তাতে লোগো ব্যবহার যেন মানসম্মতভাবে করা হয় তার জন্যই এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ১৭ মার্চ ২০২০ থেকে ১৭ মার্চ ২০২১ পর্যন্ত বছর মুজিববর্ষ পালিত হবে। তবে লোগো আনুষ্ঠানিকভাবে ২০২১ সালের ২৬ মার্চ পর্যন্ত ব্যবহার করা যাবে।

মুজিববর্ষ বাস্তবায়ন কমিটির পক্ষ থেকে লোগো ব্যবহারের ক্ষেত্রে ১০ দফা নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে, কোনো ব্যক্তিগত বা বেসরকারি ব্যবসায়িক বা বাণিজ্যিক প্রোডাক্ট এবং সেবার উদ্দেশে এই লোগো ব্যবহার করা যাবে না। সিগারেট, অ্যালকোহল, আগ্নেয়াস্ত্র বা এরূপ কোনো দ্রব্যদিতে মুজিববর্ষের লোগ ব্যবহার করা যাবে না। মুজিববর্ষ বাস্তবায়ন কমিটি নির্ধারিত রঙ, বর্ণবিন্যাস এবং আকৃতি ব্যতীত অন্য কোনো প্রকারে লোগো ব্যবহার করা যাবে না।

সকল সরকারি-আধাসরকারি, স্বায়ত্বশাাসিত, সংবিধিবদ্ধ প্রতিষ্ঠান, সরকারি মালিকানাধীন কম্পানি, সরকারি ও বেসরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মিডিয়া ও বিদেশে অবস্থিত দূতাবাস সকল ইমেইল, সরকারিপত্র, স্মারকপত্র ইত্যাদিতে স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের লোগের সঙ্গে ‘যথাযথ মর্যাদায়’ মুজিববর্ষের লোগো ব্যবহার করা যাবে। মুজিববর্ষ জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরীর বরাত দিয়ে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে আরো বলা হয়েছে, বিভিন্ন ক্রীড়া, সাহিত্য, রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংস্থার অনুষ্ঠানে প্রকাশনার ক্ষেত্রে লোগো ব্যবহার করা যাবে। এ ছাড়া সরকারি মালিকানাধীন সকল বাস, ট্রেন, দাপ্তরিক গাড়ি, নৌযান, অব্যন্তরীণ এবং আন্তর্জাতিক রুটে চলমান বাংলাদেশ বিমান, সামরিক এয়ার ক্রাফট এবং ক্রুজে উপযুক্ত স্থানে, বিভিন্ন অনুষ্ঠানের পোস্টার, ব্যনার, ফেস্টুনে এবং সাজসজ্জায় মুজিববর্ষের লোগো ব্যবহার নির্দেশিকা মেনে নান্দনিক উপস্থাপনার জন্য ব্যবহার করা যাবে। এর বাইরে সরকারি-বেসরকারি স্কুল কলেজ, মাদরাসা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যালেন্ডার, নোটপ্যাড, স্টেশনারি, বিজ্ঞাপন ইত্যাদি সকল প্রচার সামগ্রীতে এই লোগে ব্যবহার করা যাবে।

মুজিববর্ষ জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির পক্ষ থেকে পাঠানো নির্দেশনায় সরকারিভাবে বিভিন্ন প্যাডে মুজিববর্ষ লোগো কিভাবে ব্যবহার করতে হবে তার একটি নমুনা তুলে ধরা হয়েছে। গণমাধ্যমে পাঠানো নমুনা অনুযায়ী, সরকারি বিভিন্ন পত্রে সরকারি লোগো যদি পত্রের উপরে মাঝখানে থাকে তবে মুজিববর্ষের লোগে সরকারি লোগোর ডানপাশে সমানভাবে বসবে। আর যদি সরকারি পত্রে সরকারি লোগে পত্রের একবারে উপরে বাম পাশে  থাকে সে ক্ষেত্রে মুজিববর্ষের লোগো সমান্তরালে সর্বডানে বসবে। এভাবে বেসরকারিভাবে যদি কেউ মুজিববর্ষ উদযাপনের জন্য লোগে ব্যবহার করে টুপি, টি-শার্ট, গেঞ্জিতে লোগো ব্যবহার করতে চায় করতে পারবে। তবে সে ক্ষেত্রে অবশ্যই লোগোর নান্দনিকতা যেন কোনোভাবে ক্ষুণ্ণ না হয় সে বিষয়ে আহ্বান জানানো হয়েছে মুজিববর্ষ বাস্তবায়ন কমিটির পক্ষ থেকে।

আরও পড়ুনঃ বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অ্যামনেস্টির ভয়ানক ষড়যন্ত্র!

আরও পড়ুনঃ আরও পড়ুনঃ ওই মহামানব আসে…

আরও পড়ুনঃ মুজিববর্ষে আমাদের প্রত্যাশা

আরও পড়ুনঃ জগতে জ্যোতির্ময় জাতির জনক

আরও পড়ুনঃ ইরানের বিধ্বস্ত ইউক্রেনের বিমানের ভিডিও প্রকাশ করল যুক্তরাষ্ট্র

আরও পড়ুনঃ ভবঘুরে মজনুর বিকৃত জীবন

আরও পড়ুনঃ যুদ্ধ এক দুঃখ

আরও পড়ুনঃ মুজিববর্ষ উদ্‌যাপন অনুষ্ঠানে জাস্টিন ট্রুডো

দেশ-বিদেশের টাটকা খবর আর অন্যান্য সংবাদপত্র পড়তে হলে cbna24.com 

সুন্দর সুন্দর ভিডিও দেখতে হলে প্লিজ আমাদের চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

cbna24-7th-anniversary
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.

five × 5 =