পত্রিকার পাতা থেকে

মায়ের সামনে সংখ্যালঘু যুবককে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল

মায়ের সামনে সংখ্যালঘু যুবককে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল

মায়ের সামনে সংখ্যালঘু যুবককে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে।

কুমিল্লায় এক সংখ্যালঘু যুবকের হাত-পা বেঁধে মায়ের সামনে নির্যাতন করেছেন গ্রাম্য মাতাব্বর। নির্যাতনের এই ভিডিও ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। নির্যাতনের এ ঘটনাটি নিয়ে চারদিকে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।  ঘটনাটি ঘটেছে কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার দারোরা ইউনিয়নের  কাজিয়াতল গ্রামের পূর্বপাড়ায়। নির্যাতনের শিকার যুবক হলেন কাজিয়াতল গ্রামের রাখাল চন্দ্রের ছেলে রাজু চন্দ্র। অভিযুক্ত মাতাব্বর আবু তাহের (কন্টাক্টর) দারোরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি এবং একই ইউনিয়নের ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের বর্তমান আমির। তিনি দুই দলেরই ইউনিয়ন কমিটির পদে রয়েছেন। গতকাল নির্যাতনের শিকার রাজু চন্দ্রের বড় ভাই সজল চন্দ্র বিশ্বাস মাতাব্বর আবু তাহেরকে আসামি করে কুমিল্লা মুরাদনগর থানায় একটি মামলা করেছেন।  জানা গেছে, গত ২৫ ডিসেম্বর বিকালে হাত-পা বেঁধে ওই যুবককে অমানুষিকভাবে নির্যাতন করেন মাতাব্বর আবু তাহের। আর সেই নির্যাতনের দৃশ্য সামনা-সামনি দাঁড়িয়ে দেখতে বাধ্য করা হয়েছে মাকে। ঘটনাটি উপস্থিত কেউ মোবাইলে ধারণ করে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন। একদিনের মধ্যে নির্যাতনের ভিডিওটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পড়ে।

এ বিষয়ে মুরাদনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এ কে এম মনজুর আলম বলেন, যুবককে নির্যাতনের ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছে। আসামি পলাতক রয়েছে। পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে মাঠে রয়েছে।

শেষ সংবাদে পাওয়া পর্যন্ত জানা গেছে কুমিল্লার মুরাদনগরে মায়ের সামনে সংখ্যালঘু যুবকের হাত-পা বেঁধে নির্যাতন চালানো সেই গ্রাম্য মাতব্বরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে নারায়ণগঞ্জ থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার নাম আবু তাহের কন্টাক্টর।

আরও পড়ুনঃ লিসবনে গলায় ফাঁস দিয়ে বাংলাদেশি যুবকের আত্মহত্যা

বিষয়টি নিশ্চিত করে মুরাদনগর থনার ওসি মনজুরুল আলম জানান, তাকে নারায়ণগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তবে এখনও মুরাদনগর আনা হয়নি।

এর আগে উপজেলার দারোরা ইউনিয়নের কাজিয়াতল গ্রামের পূর্বপাড়ায় মায়ের সামনে যুবকের হাত-পা বেঁধে নির্যাতনের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। নির্যাতনের শিকার যুবকের নাম রাজু চন্দ্র। তিনি কাজিয়াতল গ্রামের রাখাল চন্দ্রের ছেলে।

পরে বৃহস্পতিবার রাজুর বড় ভাই সজল চন্দ্র বিশ্বাস মাতব্বর আবু তাহেরকে আসামি করে কুমিল্লা মুরাদনগর থানায় মামলা করেন।

বিভিন্ন অনুষ্ঠানের ভিডিও দেখতে হলে ঃ

স্থানীয়রা জানান, বুধবার বিকেলে কোন কারণ ছাড়াই হাত-পা বেঁধে ওই যুবককে মারধর করেন মাতব্বর আবু তাহের। বাধা দিয়ে রুখতে না পেরে সেই নির্যাতনের দৃশ্য দাঁড়িয়ে দেখেছেন ওই যুবকের মা। ঘটনাটি উপস্থিত কেউ মোবাইলে ধরণ করে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। একদিনের মধ্যে নির্যাতনের ভিডিওটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে যায়।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, জামা-কাপড় খুলে সংখ্যালঘু যুবকের হাত-পা বেঁধে প্রচণ্ড শীতের মধ্যে মাটিতে ফেলে রাখা হয়েছে। এই অবস্থায়ই ওই যুবকের মুখে ও বুকে লাথি মেরে চলেছেন ওই মাতব্বর।

নির্যাতনের শিকার ওই যুবকের ভাই সজল চন্দ্র বিশ্বাস জানান, ভাইয়ের ওপর এমন অমানবিক আচরণের বিচার চেয়ে আমরা এলাকার অন্যান্য মাতব্বরদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে এখন ক্লান্ত। মাতব্বর আবু তাহেরের বিচার চেয়ে আমি মুরাদনগর থানায় মামলা করেছি।

cbna24-7th-anniversary
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.

two × two =