দেশের সংবাদ

বেচাকেনার তোড়ে উধাও করোনা ভয়!

বেচাকেনার তোড়ে উধাও করোনা ভয়!

সজীব দেবরায়, মৌলভীবাজার / ৯ মে, ২০২১। মহামারী করোনার ২য় ধাপের সংক্রমণ রোধে সারাদেশে চলছে তৃতীয় দফা লকডাউন। এরই মধ্যে আসন্ন ঈদকে ঘিরে জমে উঠেছে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের মার্কেট ও বিপণি বিতানগুলো। করোনার ঝুঁকি নিয়েই ঈদ উদযাপনের লক্ষ্যে কেনাকাটায় ব্যস্ত সময় পার করছেন কমলগঞ্জবাসী। মার্কেট ও বিপণি বিতানে পছন্দের জিনিসপত্র কিনতে ছুটছেন বিভিন্ন বয়সী মানুষ। সেই সঙ্গে মার্কেট ও বিপণি বিতানগুলোতে ক্রেতাদের ভিড় দেখা গেছে।

করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়েই শপিংমলগুলোতে ঈদের কেনাকাটায় ভিড় করছেন ক্রেতারা। তবে প্রথম দিকে মার্কেটগুলোতে ক্রেতার সংখ্যা কম থাকলেও গত ৩-৪ দিনে ফুটপাত থেকে শুরু করে বিভিন্ন মার্কেট ও বিপণি বিতানগুলোতে ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। ঈদকে সামনে রেখে কেনাকাটা করতে ক্রেতারা বিভিন্ন মার্কেট ও বিপণি বিতানে ছুটে চলছেন। শপিংমলগুলোতে সুরক্ষা ব্যবস্থার যেমন অভাব, তেমনি অনেকেই মানছেন না সামাজিক দূরত্ব বা স্বাস্থ্যবিধি। এছাড়া কোন দোকানেই চোখে পড়েনি হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবহার। আবার স্বাস্থ্যবিধি মানতে উদাসীনতা রয়েছে শপিংয়ে আসা ক্রেতাদের মধ্যেও। অনেকে আবার করোনার ঝুঁকিতে শিশুদের নিয়ে আসছেন শপিং করতে।

বেচাকেনার তোড়ে উধাও করোনা ভয়! কমলগঞ্জ উপজেলার ভানুগাছবাজার, আদমপুরবাজার, মুন্সিবাজার, শমশেরনগরবাজারসহ বিভিন্ন মার্কেট ঘুরে দেখা যায়, ক্রেতারা কেনাকাটা জন্য ভিড় করছেন। গাদাগাদি করে কেনাবেচা হচ্ছে। ভিড় দেখে মনেই হয় না দেশে করোনা বলে কোন রোগ আছে। সকলে নির্দিধায় কেনা কাটা করছেন। মার্কেটের পাশাপশি ফুটপাতের দোকানগুলোতেও ভিড় দেখা গেছে। বেশীর ভাগ মার্কেট ও বিপনি বিতানে নারী ক্রেতাদের উপস্থিতি বেশী থাকলেও অনেকে আবার পরিবার-পরিজন এমনকি শিশুদের সঙ্গে নিয়েও কেনাকেটা করতে এসেছেন।

ঈদ সামনে রেখে এবার বিক্রেতারা আগেভাগে প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিলেন। এ কারণে পাইকারি বাজার থেকে পোশাক সংগ্রহের কাজটি রোজার আগেই করেছেন। এছাড়া অনেক উদ্যোক্তা অনলাইনে পোশাক বিক্রি করছেন।

মার্কেট ও বিপণি বিতানে ক্রেতাদের আগমনে খুশি বিক্রেতারাও। তারা বলছেন, করোনার সংক্রমণরোধে সরকারের লকডাউন ঘোষনায় প্রায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় তারা কিছুটা আর্থিক সংকটে পড়েছিলেন। ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোতে সপ্তাহ খানেক আগেও তেমন একটা বেচাকেনা ছিলনা বললেই চলে। তবে গত ৩-৪ দিন ধরে হঠাৎ ক্রেতার সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় বেচাকেনাও বেড়ে গেছে। তাদের বেচাবিক্রি ভালো হচ্ছে।

ক্রেতা তাহমিনা পারভীন, তামান্না ইসলামসহ কয়েকজন ক্রেতা জানান, করোনার কারণে প্রায় গত ১ মাস ধরে ঘরবন্দি ছিলেন। ঈদকে সামনে রেখে কেনাকাটা করতে বের হয়েছেন। মার্কেটগুলোতে বিভিন্ন ডিজাইনের নতুন পোশাক পাওয়া যাচ্ছে। অনলাইনে কেনার চেয়ে দোকান থেকে কিনলে দাম ও মানে ভালো পণ্য মেলে।

কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক বলেন, ‘কেনাকাটায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে ব্যবসায়ীদের বলা হয়েছে। তাছাড়া উপজেলা প্রশাসন তদারকি করছে।’


সর্বশেষ সংবাদ

দেশ-বিদেশের টাটকা খবর আর অন্যান্য সংবাদপত্র পড়তে হলে CBNA24.com

সুন্দর সুন্দর ভিডিও দেখতে হলে প্লিজ আমাদের চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

আমাদের ফেসবুক পেজ   https://www.facebook.com/deshdiganta.cbna24 লাইক দিন এবং অভিমত জানান

আপনার মতামত দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *