জীবন ও স্বাস্থ্য

নারীরা পুরুষের কাছে কী চায়?

নারীরা পুরুষের কাছে কী চায়
প্রতীকী ছবি
বিয়ে দুজন মানুষের মধ্যে একটি পারস্পরিক চুক্তি। প্রতিটি বিয়েতে বিশ্বাস, ভালোবাসা, সম্মান ও সততার প্রয়োজন। কিন্তু একজন নারীকে এগুলো দেওয়ার পরও অনেক পুরুষ দেখেন তাদের স্ত্রীরা সুখী নন। এজন্য নারীরা কী পেলে সুখী হতে পারে সে প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে থাকেন পুরুষরা।
 
পুরুষ যে উত্তর খুঁজতে খুঁজতে হয়রান, সেই প্রশ্নের উত্তর খোঁজার চেষ্টা করেছে ভারতীয় জীবনধারা বিসয়ক ওয়েবপোর্টাল বোল্ড স্কাই। অনেক পুরুষই সাধারণত যেসব বিষয় নিয়ে ভাবেন না, সেসব বিষয়ই খুঁজে দেখেছে তারা।
 
 
মায়াঃ নারীরা পুরুষের কাছে যে জিনিসটি বেশি চায় তা হলো মায়া। যদি দেখা যায় আপনি বিয়ের সমস্ত শর্ত পূরণ করার পরও আপনার স্ত্রী সুখী নন তবে বুঝতে হবে স্ত্রীর প্রতি আপনার মায়ার ঘাটতি রয়েছে। মায়া ভালোবাসার একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। যদি আপনি আপনার স্ত্রীকে পরিপূর্ণ ভালোবাসা দিতে চান তাহলে সবার আগে অন্তর থেকে তার প্রতি মায়া তৈরি করুন। প্রত্যেক নারীই পুরুষের কাছ থেকে মায়া প্রত্যাশা করে। স্বামীর মনে মায়া না থাকলে স্ত্রীর মনে অশান্তির সৃষ্টি হয়। এর ফলে বৈবাহিক জীবনে ঝামেলার সৃষ্টি হয়। তাই প্রতি মুহূর্তে আপনার সঙ্গীকে মায়ায় আবিষ্ট করুন।
 
আলাপ-আলোচনাঃ কথাবার্তা, আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে আপনার স্ত্রীকে আপনার সংস্পর্শে রাখতে পারবেন। আপনার স্ত্রী আপনার দৈনন্দিন জীবনের কথা, অতীত, ভবিষ্যত এবং আপনার চিন্তাধারার কথা শুনতে পছন্দ করেন। এসব কথা ব্যক্তিগত হতে পারে আবার দুজনের জন্য শিক্ষামূলক কিছুও হতে পারে। আপনার স্ত্রী আসলে আপনার সঙ্গে ‘ফ্রি’ হতে চায় এবং এ জন্য সবকিছু শুনতে ও শোনাতে চায়।
 
সততা ও অকপটতাঃ প্রত্যেক নারীই তার স্বামীর সততা নিয়ে প্রশ্ন করেন। তারা চান তাদের সঙ্গী সৎ হোক। সততার ব্যাপারে কোনো দর-কষাকষি চলে না, আপনি যদি চান আপনার স্ত্রী আপনাকে বিশ্বাস করুক তবে আপনাকে অবশ্যই সৎ হতে হবে।
অকপতাও স্বামীর কাছে নারীর আরও একটি অন্যতম চাওয়া। আপনার স্ত্রী চান যে আপনি তার সঙ্গে অকপট থাকুন। বিবাহিত জীবনে সুখী হতে হলে নিজের সঙ্গে ও স্ত্রীর সঙ্গে প্রতারণা করবেন না। যদি স্ত্রীর কাছে অকপট থাকেন তবে আপনার স্ত্রী আগের চেয়ে ভালোবাসবেন।
 
 
অর্থনৈতিক প্রতিশ্রুতিঃ নারীরা বিয়ের মাধ্যমে একটি অর্থনৈতিক প্রতিশ্রুতি প্রত্যাশা করেন। তিনি আশা করেন অর্থনৈতিক সকল কর্মকাণ্ডে তার স্বামী পাশে থাকুক। স্ত্রীকে সুখী করতে চাইলে মানসিক ও শারীরিক প্রতিশ্রুতির পাশাপাশি অর্থনৈতিক প্রতিশ্রুতি দিতে হবে। বিবাহিত জীবনে সুখ ও ভারসাম্য বজায় রাখতে অর্থনৈতিক প্রতিশ্রুতি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।
 
পারিবারিক প্রতিশ্রুতিঃ প্রত্যেক নারীর কাছেই বিয়ে ও ভালোবাসার জন্য পারিবারিক প্রতিশ্রুতি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। পারিবারিক প্রতিশ্রুতি পূর্ণ না হলে সংসার জীবন হুমকির মুখে পড়তে পারে, বিষাদে পরিণত হতে পারে দাম্পত্য জীবন।
 
cbna24-7th-anniversary
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.

14 − eight =